মোবাইলে চার্জ দেওয়ার নিয়ম জেনে নিন।

শেয়ার করুন

মোবাইলে চার্জ দেওয়ার নিয়মঃ আপনার মোবাইলে কি চার্জ থাকছে না? মোবাইল দীর্ঘক্ষন চার্জারে কানেক্ট থাকা সত্বেও আশানুরুপ চার্জ ওঠছে না? চার্জ কি নিজে থেকে কমে যাচ্ছে? আপনার উত্তর যদি হ্যাঁ হয়, তাহলে আজকের এই গুরুত্বপূর্ণ পোস্টটি আপনার জন্য।

আজ আমরা মোবাইলে চার্জ দেওয়ার নিয়ম/ উপায় সম্পর্কে জানবো। ধাপগুলা অনুসরণ করলে আপনার ফোনের ব্যাটারি হেলথ ভালো থাকবে এবং কোন সমস্যা ছাড়াই দীর্ঘদিন মোবাইল ব্যাটারি ব্যবহার করতে পারবেন।

মোবাইলে চার্জ দেওয়ার নিয়ম

একটি স্মার্ট ফোনের ব্যাটারি দ্রুত নষ্ট হয়ে যাওয়ার পিছনে মূলত আমরা ফোন চার্জিং এর সময় যে ছোট বড় ভুলগুলো করে থাকি সেই ভুলগুলো দায়ী। আপনি যদি এই ভুলগুলো এড়িয়ে যেতে পারেন তাহলে আপনার ফোনের ব্যাটারি লাইফ অনেকগুণ বেড়ে যাবে।

সারারাত ফোন চার্জিংয়ে না রাখা

ফোনের ব্যাটারি হেলথ নষ্ট করার জন্য সবার প্রথমে যে ভুলটি দায়ী সেটা হল, পুরো রাত ফোন চার্জিংয়ে রাখা। সাধারণত রাতে ঘুমানোর সময় আমরা ফোনকে চার্জিং এ রেখে ঘুমিয়ে পড়ি এবং সকাল পর্যন্ত এভাবে রেখে দেই।

দীর্ঘক্ষণ চার্জিংয়ে থাকার ফলে ফোনে চার্জার বারবার ব্যাটারির উপরে প্রেসার ক্রিয়েট করতে থাকে। আর এভাবে দিনের পর দিন চলতে থাকলে একটা সময় ফোনের ব্যাটারির স্বাস্থ্য দুর্বল হয়ে পড়ে। যার ফলে খুব দ্রুত ব্যাটারি নষ্ট হয়ে যায়।

আরোও পড়ুন: অসাধারণ কিছু অ্যান্ড্রয়েড টিপস এন্ড ট্রিক্স।

বর্তমান সময়ের স্মার্টফোন গুলো ১/২ ঘন্টার মধ্যে সম্পূর্ণ চার্জ হয়ে যায়। তাই ফোনে ফুল চার্জ হওয়ার পর সেটিকে চার্জিংয়ে রেখে দেওয়ার একদম উচিত না। ফোনকে এমন অস্বাভাবিক চার্জিং এর হাত থেকে বাঁচানোর জন্য ফোন চার্জিং এর পূর্বে এলার্ম দিয়ে ঘুমাবেন।

ফোনে ফুল চার্জ হওয়ার সাথে সাথে সেটিকে চার্জার থেকে ডিসকানেক্ট করতে পারবেন। এতে করে দীর্ঘদিন ফোনের ব্যাটারি ব্যাকআপ পেয়ে যাবেন।

চার্জিং পার্সেন্টেজ ঠিক রাখা

ফোনের ব্যাটারি ভালো রাখতে চার্জিং পার্সেন্টেজ এ মনোনিবেশ করা। অর্থাৎ ফোনের চার্জ সর্বোচ্চ ৮০-৯০% ভিতরে রাখা এবং সর্বনিম্ম চার্জ ৩০-২০% মধ্যে রাখা। আপনি যখন ফোন চার্জ করবেন তখন চেষ্টা করবেন ফোনের চার্জ যেন ৮০-৯০% এর মধ্যে থাকে। এতে করে ফোনের ব্যাটারির ওপর অতিরিক্ত চার্জিং চাপ পড়বে না। তাই মোবাইলে চার্জ দেওয়ার নিয়ম মেনে চার্জ করুন।

আবার চার্জিং যদি ৩০-২০% এর নিচে চলে আসে তাহলে ব্যাটারির কর্মক্ষমতা হ্রাস পাবে। তাই ফোনের চার্জ ৩০-২০% কমে আসলে ফোন চার্জ করা উচিত। এতে ব্যাটারির স্বাস্থ্যও ভালো থাকবে দীর্ঘদিন। তবে নতুন অবস্থায় ফোনের ব্যাটারি ১০০% চার্জ করে নিবেন এবং প্রতিমাসে ১-২ বার ফোনের চার্জ ০% থেকে ১০০% করবেন। এটিও ব্যাটারি ভালো রাখতে একটি কার্যকরী উপায়। সুতরাং মোবাইলে চার্জ দেওয়ার নিয়ম মেনে চার্জ করুন।

সবসময় নিজের চার্জার ব্যবহার করা

বিভিন্ন প্রয়োজনে আমরা কোথাও গেলে অথবা নিজের চার্জারের সমস্যা হলে কিংবা হাতের নাগালে অন্যের চার্জার পেলে আমরা সেটি দিয়ে নিজের ফোন চার্জ করি। অন্যের চার্জার দিয়ে নিজের ফোন চার্জ করি যা মোবাইলে চার্জ দেওয়ার নিয়ম এ উচিত নয়।

ধরুন আপনার ফোন 18 ওয়াটের ফাস্ট চার্জিং সার্পোট করে। কিন্তু আপনি সেখানে যদি 33 ওয়াটের ফাস্ট চার্জার দিয়ে চার্জিং করেন তাহলে 33 ওয়াটের ফাস্ট চার্জার অনেক বেশি প্রেসার ক্রিয়েট করবে ব্যাটারির ওপর দ্রুত চার্জ নেওয়ার জন্য। কিন্তু ব্যাটারির কার্য ক্ষমতা বেশি না হওয়ার করণে অতিরিক্ত চাপের ফলে ব্যাটারির কার্য ক্ষমতা নষ্ট হতে শুরু  করবে। তাই মোবাইলে চার্জ দেওয়ার নিয়ম মেনে চার্জ করুন।

আরোও জানুনঃ স্মার্টফোনের সেরা ৫টি সিক্রেট টিপস যা আপনার জানা উচিত।

আবার অনেকে বলবেন আমার ফোনের ব্যান্ডের সাথে মিল রেখে আমি অন্য ফোনের চার্জর দিয়ে চার্জ করি। এতে সমস্যা হবে কিনা? উত্তর হ্যাঁ, এতেও ফোনের ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। প্রত্যেকটি ফোনের কার্য ক্ষমতার ওপর ভিত্তি করে তার চার্জারের এমপায়ার বা ভোল্ট নির্ণয় করা হয়।

আপনার ফোনের এমপায়ার এর সাথে অন্য ফোনের চার্জার এর এমপায়ার মিল না থাকলে আপনার ফোনের ব্যাটারির ওপর প্রভাব পড়তে পারে। অনেক সময় আমাদের অর্জিনাল চার্জার হারিয়ে যায় বা নষ্ট হয়ে যায় তখন আপনার ফোনের অর্জিনাল চার্জার যদি কাস্টমার কেয়ারে পান তাহলে সেখান থেকে সংগ্রহ করে নিবেন।

আর যদি সংগ্রহ করতে না পারেন তাহলে আপনার ফোনের ভোল্ট, এমপায়ার,ও ওয়ার্ট ঠিক রেখে চার্জার কেনার চেষ্টা করবেন। এতে করে  অনেকটা সমস্যা থেকে মুক্ত থাকবেন। তাই মোবাইলে চার্জ দেওয়ার নিয়ম মেনে চার্জ করা উচিত।

পাওয়ার ব্যাংক ব্যবহার না করা

জরুরি প্রয়োজনে আমরা পাওয়ার ব্যাংক ব্যবহার করি সেটা ঠিক আছে, কিন্তু সবসময় পাওয়ার ব্যাংক ব্যবহার করা একদম উচিত নয়। আপনার ফোনের ইনপুট ও আউটপুটের সাথে পাওয়ার ব্যাংকের ইনপুট ও আউটপুটের সম্পূর্ণভাবে মিল নাও হতে পারে। এতে করে ফোনের ব্যাটারির কার্য ক্ষমতা দ্রুত কমে যায়। তাই মোবাইলে চার্জ দেওয়ার নিয়ম মেনে সঠিকভাবে চার্জ করতে যতটা সম্ভব পাওয়ার ব্যাংক ব্যবহার এড়িয়ে চলুন।

চার্জিং অবস্থায় ফোন ব্যবহার না করা

অনেক সময় আমরা ফোন চার্জিং এ রেখে ফেসবুকিং, ইউটিউবিং, চ্যাটিং বা কলিং এ লিপ্ত থাকি। এটি ফোনের ব্যাটারির কার্যক্ষমতা কমিয়ে দেয়। সাধারণ ভাবে আমরা যখন ফোন চার্জ করি তখন সেটি ফোনের ব্যাটারির ওপর প্রেসার তৈরি করে ফলে ফোন সামান্য গরম হয়ে ওঠে।

চার্জিং অবস্থায় ফোন ব্যবহার করলে সেটি ফোনের ওপর আরোও বেশি পরিমাণে চাপ সৃষ্টি করে। ফলে ফোন লোড নিতে সমস্যা হওয়ায় ব্যাটারি ডেমেজ হতে শুরু করে। সুধু ব্যাটারি ডেমেজ নয়, এটি ফোনের অন্যান্য যন্ত্রাংশের ও ক্ষতি করতে পারে। তাই ফোন চার্জিং এ রেখে কখনও ব্যবহার করা উচিত নয়। ফোন চার্জিং অবস্থায় সম্ভব হলে Wifi, Data মোড অপ রাখা ভালো।

ফোন চার্জিং অবস্থায় ডাটা বা ওয়াইফাই চালু থাকার কারণে এটি ফোনের কিছু অ্যাপ বা সফটওয়্যারকে সচল রাখে। ফলে এসব সফটওয়্যার এর কারণে ফোনে চার্জিং ওঠতে বিলম্ব হয় এবং ফোন গরম হয়ে ওঠে। তাই সম্ভব হলে মোবাইলে চার্জ দেওয়ার নিয়ম মেনে ফোন চার্জিং অবস্থায় ফোনের Data, Wi-Fi, Bluetooth, Map ইত্যাদি কানেকশন Off রাখুন।

 

Similar Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *