মালয়েশিয়া ভিসা চেক। Malaysia Visa Check Online

শেয়ার করুন

মালয়েশিয়া ভিসা চেক এখন আপনি ঘরে বসে করতে পারেন। বিদেশে চাকরি, ভ্রমণ, কিংবা পড়ালেখা, যেকোন কাজেই প্রয়োজন হয় ভিসা। ভিসা ছাড়া একদেশ থেকে অন্যদেশ যাতায়াত করা সম্পূর্ণভাবে বেআইনি। আমাদের মধ্যে অনেকে আছেন মালয়েশিয়া যেতে চাচ্ছেন। ভিসার কাজও সম্পূর্ণ করেছেন। কিন্তু বুঝতে পারছেন না আপনার ভিসাটি আসল নাকি নকল?

তাই আজকের পোস্টে আমি আলোচনা করবো কিভাবে মালয়েশিয়া ভিসা চেক করবেন বা ভিসার বর্তমান কন্ডিশন কি তা যাচাই করবেন, মালয়েশিয়া ই ভিসা চেক করার নিয়ম, রেজিস্ট্রেশন নম্বর দিয়ে ভিসা চেক প্রক্রিয়া, কলিং ভিসা চেক ও মালয়েশিয়া ভিসা সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন-উত্তর ইত্যাদি। তো চলুন শুরু করি।

অনলাইনে মালয়েশিয়া ভিসা চেক করার নিয়ম

মোবাইল ফোন কিংবা কম্পিউটার দিয়ে সম্পূর্ণ ফ্রিতে মাত্র কয়েকটি স্টেপে অনলাইনে মালয়েশিয়া ভিসা চেক করতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে অব্যশই সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়ার অনুরোধ রইল।

অনলাইনে মালয়েশিয়া ভিসা চেক করতে প্রথমে ফোনের ইন্টারনেট সংযোগটি অন করুন। তারপর যেকোন ব্রাউজারের এড্রেসবারে https://eservices.imi.gov.my/myimms/FomemaStatus?lang=en লিখে সার্চ করুন। অথবা আপনি চাইলে এখানে ক্লিক করে সরাসরি ওয়েবসাইটে ঢুকে মালয়েশিয়া ভিসা চেক করতে পারেন। । তাহলে আপনার সামনে এরকম একটি ইন্টারপেইজ ওপেন হবে।

এখন Search 1 বক্সে Passport number ও citizenship সিলেক্ট করুন। এবং Search 2 বক্সে Name ও Citizen সিলেক্ট করে Right পাশ থেকে Search বাটনে ক্লিক করুন। সবগুলো তথ্য সঠিক থাকলে আপনি ভিসার সম্পূর্ণ বিবরণ দেখতে পাবেন।

রেজিস্ট্রেশন নম্বর দিয়ে মালয়েশিয়া ভিসা চেক

আপনি যদি কোম্পানির রেজিস্ট্রেশন নম্বর দিয়ে মালয়েশিয়া ভিসা চেক করতে চান, তাহলে এই পদ্ধতিটি অবলম্বন করতে পারেন। এই পদ্ধতিতে আপনি কোম্পানির সকল কর্মীদের লিস্ট বের করতে পারবেন। তারপর সেখান থেকে আপনার পাসপোর্ট নম্বর ও নাম দিয়ে মালয়েশিয়া ভিসা চেক করতে পারবেন।

এখন সার্চ বক্স গুলোতে Employer Identification Card No Application number দিয়ে Search বাটনে ক্লিক করুন। অথবা সুধু মাত্র Company Registration Number দিয়েও মালয়েশিয়ার ভিসা চেক করতে পারবেন।

অ্যাপ থেকে মালয়েশিয়া ভিসা চেক করার নিয়ম

ওয়েবসাইট ছাড়াও অ্যাপ থেকে খুব সহজে মালয়েশিয়া ভিসা চেক করতে পারবেন। অ্যাপ থেকে মালয়েশিয়ার ভিসা চেক করতে প্রথমে ফোনের গুগল প্লেস্টোর অ্যাপটি ওপেন করুন এবং সার্চ বারে ” Verify app-visa check Malaysia” লিখে সার্চ করুন। তারপর অ্যাপটি ইন্সটল করুন।

অ্যাপটি ইন্সটল হলে সেটি ওপেন করুন। তারপর আপনার কান্ট্রি ও পাসপোর্ট নম্বর দিয়ে “Search” বাটনে ক্লিক করুন এবং কিছুক্ষণ অপেক্ষা করুন। তাহলে পাসপোর্টধারীর নাম, পাসপোর্ট নম্বর, Current pass type, Current Visa type ও Application Status সহ বিস্তারিত তথ্য দেখতে পাবেন। এভাবে মালয়েশিয়া ভিসা চেক করা অনেকটা সোজা।

ভিসা স্ট্যাটাস কোনটার অর্থ কি জেনে নিন সহজে

Application Status এ বিভিন্ন ধরনের কি-ওয়ার্ড দেখতে পাবেন যেমন: NEW, PAY, LULUS, ERROR, CANCEL, APPROVED, REJECTED ETC. স্ট্যাটাস গুলোর মানি নিন্মে তুলে ধরা হলো:

New: অর্থাৎ আপনার ভিসা আবেদনটি গৃহিত হয়েছে। মালয়েশিয়ার ইমিগ্রেশন বিভাগ দ্বারা প্রক্রিয়া করা হচ্ছে। যদি নথি পাঠানো বাকি থাকে তাহলে দ্রুত তা পাঠানোর অনুরোধ করা যাচ্ছে।

Pay: আবেদন ফি পরিশোধ সম্পন্ন হয়েছে।

Lulus: আপনার ভিসা আবেদনটি মালয়েশিয়ার অভিবাসন বিভাগ দ্বারা অনুমোদিত হয়েছে।

Cancel: আপনার ভিসা আবেদনটি মালয়েশিয়ার অভিবাসন বিভাগ বাতিল করেছে।

Rejected: ভিসা আবেদনটি মালয়েশিয়ার অভিবাসন বিভাগ প্রত্যাখান করেছে।

আরো জানুনঃ কম দামে অনলাইনে বিমানের টিকেট কাটার নিয়ম।

মালয়েশিয়া ই ভিসা চেক করার নিয়ম

আপনি চাইলে অনলাইনের মাধ্যমে মালয়েশিয়া ই ভিসা চেক করতে পারবেন খুব সহজে। মালয়েশিয়া ই ভিসা চেক করতে এই লিংকে ক্লিক করুন। তাহলে আপনি নিচের মতো একটি ইন্টারপেইজ দেখতে পাবেন।

এখন প্রথম ঘরে Passport number, ২য় ঘরে Sticker number ও নিচে থেকে ক্যাপচাটি পূরণ করে টার্মস এন্ড কন্ডিশন ঘরে টিকমার্ক দিয়ে “Check” বাটনে ক্লিক করুন। আপনার ই ভিসার সমস্ত বিবরণ এখানে দেখতে পাবেন। এই পদ্ধতি অবলম্বন করে খুব সহজে মালয়েশিয়া ই ভিসা চেক করতে পারবেন।

মালয়েশিয়া কলিং ভিসা চেক করার নিয়ম

অনলাইনে মালয়েশিয়া কলিং ভিসা চেক করতে এই লিংকে ক্লিক করুন। তাহলে এরকম একটি ইন্টারপেইজ দেখতে পাবেন।

এখন কলিং পেপার কোম্পানির রেজিস্ট্রেশন নাম্বার দিয়ে “Search” বাটনে ক্লিক করুন। ঐ কম্পানিতে আবেদনকৃত সকল কর্মীর নাম ও তথ্য দেখতে পাবেন। সেখান থেকে আপনার নাম ও তথ্যটি খুঁজে নিয়ে খুব সহজে কলিং পেপার চেক করতে পারবেন।

মালয়েশিয়া টুরিস্ট ভিসা রিকোয়ারমেন্ট

মালয়েশিয়া টুরিস্ট ভিসায় আবেদনের পূর্বে তাদের রিকোয়ারমেন্ট গুলো জেনে নেওয়া ভালো। তাহলে খুব সহজেই মালয়েশিয়া টুরিস্ট ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবেন। রিকোয়ারমেন্ট গুলো হল:

  • একটি বৈধ ও একটিভ পাসপোর্ট।
  • সদ্য তোলা ছবি, টুপি গ্লাস বা ক্যাপ ইত্যাদি ব্যবহার করা যাবে না।
  • মালয়েশিয়া ভিসা আবেদন ফরম।
  • ব্যাবসায়ীদের ক্ষেত্রে নবায়নকৃত ট্রেড লাইসেন্স, ভিজিটিং কার্ড।
  • চাকুরীজিবীদের ক্ষেত্রে এনওসি লেটার।
  • মিনিমাম ৬ মাসের ব্যাংক স্টেটমেন্ট।
  • হোটেল বুকিং কপি।
  • এয়ার টিকেট বুকিং।
  • কোভিড ১৯ ভ্যাকসিন সার্টিফিকেট।

মালয়েশিয়া টুরিস্ট ভিসা আবেদন

বাংলাদেশী একজন পাসপোর্টধারী ব্যক্তি মালেশিয়া টুরিস্ট ভিসা সর্বোচ্চ ৩০ দিনের জন্য আবেদন করতে পারবেন। অর্থাৎ ৩০ দিনের বেশি মালয়েশিয়া অবস্থান করার বৈধতা নেই। মালয়েশিয়া টুরিস্ট ভিসা আবেদন করতে বাংলাদেশী কিছু অথরাইজড এজেন্সির মাধ্যমে আবেদন করতে হবে। অন্য কোন পদ্ধতিতে আবেদন করলে তা গ্রহণযোগ্য বলে বিবেচিত হবে না।

মালয়েশিয়া টুরিস্ট ভিসার জন্য কোন দালালের শরণাপন্ন না হয়ে সরাসরি এজেন্সি গুলোর মাধ্যমে নির্দিষ্ট পরিমাণ এজেন্সি ফি ও মালয়েশিয়া সরকার কর্তৃক ফি পরিশোধ পূর্বক আবেদন করতে পারবেন। এজেন্সি  গুলো হলো:.

  • GD Assist Limited,
  • Speedy int’ Limited, +8801844000853/ +8801844000854
  • Union Tours & travels LTD, +8801713998232/ +8801939919957
  • Saimon Overseas LTD, +88028982273/ +8801840999968
  • International Travel Corporation Limited, +8801766194500/ +8801707888202
  • Lexus Tours and Travels, +88029116434
  • Oversea links Limited
  • +880258153982
  • Logistic Travels and Tours LTD
  • H U Brahman International
  • Versatile travels and tours limited
  • Shams Air Tours and Travel Limited
  • Travels shop limited
  • Hajee Air travels limited
  • Logistic travels and tours limited
  • Pirmid Lagenda Holdings Sdn Bhd

মালয়েশিয়া ইমিগ্রেশন সংক্রান্ত প্রশ্ন ও উত্তর

প্রশ্ন: ব্যাংক স্টেটমেন্টে সর্বনিম্ন কত টাকা দেখাতে হবে?

উত্তর: কম পক্ষে এক থেকে দেড়লক্ষ টাকা। তবে এর চেয়ে বেশি হলে আরোও ভালো।

প্রশ্ন: মালয়েশিয়া টুরিস্ট ভিসা কত দিন থাকা যাবে?

উত্তর: তিন থেকে সর্বোচ্চ ৩০ দিন পর্যন্ত।

প্রশ্ন: এজেন্সি ছাড়া আবেদন করা যাবে কি?

উত্তর: না, বর্তমানে এজেন্সির বাহিরে আবেদন গ্রহণ করা হচ্ছে না।

প্রশ্ন: এজেন্সি অতিরিক্ত টাকা চার্জ করলে করণীয় কি?

উত্তর: অতিরিক্ত টাকা আত্মসাৎ এর সুযোগ নেই। কারণ ফি সরাসরি মালয়েশিয়া সরকার কর্তৃক নির্ধারণ করে দেওয়া হয়েছে।

প্রশ্ন: মালয়েশিয়া ভিসা বৈধকরণ প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে কিনা?

উত্তর: হ্যাঁ, এটি ২০২০ থেকে কার্যক্রম  শুরু হয়েছে।

প্রশ্ন: দুবাই থেকে মালয়েশিয়া যাওয়া যাবে কিনা?

উত্তর: হ্যাঁ, বৈধ-পন্থায় যাতায়াত করতে পারবেন।

প্রশ্ন: নিজ এরিয়ায় কোন কোন এজেন্সি আছে কি করে জানবো?

উত্তর: এটি জানতে গুগলে আপনার লোকেশন দিয়ে সার্চ করে দেখতে পারেন।

প্রশ্ন: টুরিস্ট ভিসায় গিয়ে চাকরি করা যাবে কিনা?

উত্তর: না, অবৈধ ভাবে কিছু করতে গেলে সমস্যায় পড়বেন।

শেষ কথাঃ

আশা করি এই পোস্টটি পড়ে আপনি মালয়েশিয় ভিসা চেক সংক্রান্ত সকল তথ্য জানতে পেরেছেন। মালয়েশিয়া ভিসা চেক সংক্রান্ত কোন প্রশ্ন থাকলে অব্যশ্যই আমাদের কমেন্ট করতে ভুলবেন না। পাসপোর্ট, ভিসা ও NID সম্পর্কিত গুরুত্বপূর্ণ পোস্ট পেতে চোখ রাখুন আমাদের ওয়েবসাইটে। ধন্যবাদ।

বিস্তারিত তথ্য পেতে আরো পড়ুনঃ

পাসপোর্ট নম্বর দিয়ে এনজাজ ভিসা চেক করুন সহজে।

ইন্ডিয়ান ভিসা চেক করার নিয়ম ও বিস্তারিত তথ্য।

 

Similar Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *